ই-পেপার বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

স্বাধীনতা ও একুশে পদক বেচতে চান কবি নির্মলেন্দু গুণ!

সাদেকুর রহমান :
২৬ অক্টোবর ২০২২, ১৪:১৩
কবি নির্মলেন্দু গুণ। ফাইল ফটো।

চড়ামূল্যে গ্যাস সিলিন্ডার কেনার ক্ষতি পোষাতে ‘স্বাধীনতা পুরস্কার’ ও ‘একুশে পদক’ বেচে দেয়ার কথা ভাবছেন কবি নির্মলেন্দু গুণ। চেষ্টা করে দীর্ঘদিনেও ঢাকায় নিজের বাড়িতে গ্যাস সংযোগ না পাওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন খেদভরা প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন ‘একুশে পদক’ ও ‘স্বাধীনতা পুরস্কার’ প্রাপ্ত খ্যাতিমান এ কবি।

গদ্য কবিতার অন্যতম প্রসিদ্ধ কবি নির্মলেন্দু প্রকাশ গুণ চৌধুরী। তবে নির্মলেন্দু গুণ নামেই ব্যাপক পরিচিতি তার। মূলত নারীপ্রেম ও শ্রেণি-সংগ্রামের সাথে সাথে স্বৈরাচার বিরোধিতা প্রকাশ পেয়েছে তার কবিতায়। রাজনীতি-সচেতন এ কবির জীবন রাজনীতির মতোই বন্ধুর।

Indian Pakur

১৯৭০ সালে তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘প্রেমাংশুর রক্ত চাই’ প্রকাশিত হবার পর জনপ্রিয়তা অর্জন করে। এ-গ্রন্থের অন্তর্ভূত ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে লেখা হুলিয়া কবিতাটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করে এবং পরবর্তীতে এর উপর ভিত্তি করে তানভীর মোকাম্মেল একটি পরীক্ষামূলক চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছিলেন। এছাড়াও তার ‘স্বাধীনতা, এই শব্দটি কীভাবে আমাদের হলো’ কবিতাটি মাধ্যমিক পর্যায়ের পাঠ্যপুস্তকে পাঠ্য।

বাংলা সাহিত্যে অসামান্য অবদান রাখায় তাকে ১৯৮২ সালে ‘বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার’, ২০০১ সালে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার ‘একুশে পদক’ এবং ২০১৬ সালে রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার ‘স্বাধীনতা পুরস্কার’ দেয়া হয়।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে গুণী এ কবি লেখেন, ‘স্বাধীনতা পুরস্কার ও একুশে পদক প্রাপ্ত দেশের বিশিষ্ট গুণীজনদের অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে গ্যাস ও বিদ্যুত সংযোগ দেয়া হোক। রেল এবং বিমানের টিকিটও তাদের জন্য সংরক্ষিত থাকলে ভালো হয়। রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পুরস্কার প্রাপকদের এরকম সামান্য বাড়তি সুবিধা তো দেয়া যেতেই পারে। আপনারা কী বলেন?’

তিনি আরও লেখেন, ‘আমি ঢাকার কামরাঙ্গীরচরে একটি ত্রিতল বাড়ি বানিয়েছি ২০১৬ সালে। বিদ্যুত-সংযোগ পেলেও আজ পর্যন্ত (অক্টোবর ২০২২) আমি বারবার চেষ্টা করেও গ্যাস-সংযোগ পাইনি। ফলে খোলা বাজার থেকে চড়ামূল্যে আমাকে তরল গ্যাস কিনতে হয়। এই ক্ষতি পোষাতে আমি পুরস্কারের সঙ্গে পাওয়া আমার স্বর্ণপদক দুটি বেচে দেয়ার কথা ভাবছি। সরকারকে এক মাস সময় দেয়া হলো।’

স্ট্যাটাসটি লেখা হয় বেলা ১১টা ৪৬ মিনিটে। আর রাত পৌণে ৮টা পর্যন্ত প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ৬৭৩ জন। এছাড়া এর মধ্যে কবির পক্ষে-বিপক্ষে মন্তব্য রয়েছে ২১৫টি। স্ট্যটাসটি শেয়ার করেছেন কবির ১১ জন স্বজন, ভক্ত ও শুভাকাক্সক্ষী।

স্ট্যাটাসের বিষয়টি নিয়ে যোগাযোগ করলে নির্মলেন্দু গুণ বলেন, ‘প্রত্যেকবার আমার গ্যাস কিনতে হয়, বাজারে যেতে হয়, লোক পাঠাতে হয়, তাদের ভাড়া দিতে হয়, আকস্মিকভাবে রাতে গ্যাস শেষ হয়ে গেলে, দরকার পড়লেও কিছু করতে পারছি না, চা খেতে পারছি না... সমস্যা তো হচ্ছে।’

এ জন্য ‘একুশে পদক’ ও ‘স্বাধীনতা পদক’ বেচে দেয়ার বিষয়টি সত্যি সত্যি লিখেছেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি তো সিরিয়াসলি...এইসব লেখার মধ্যে একটা রসিকতার টান থাকেই। এর ভেতর থেকে মদ্দা কথা উঠে আসে, কিন্তু লেখার ঢং তো...সবার লেখা তো একই রকম হয় না।’

তবে রাষ্ট্রীয় পদক প্রাপ্তদের নানা সুবিধার কথা রাষ্ট্রের সিরিয়াসলি ভাবা উচিত বলেও মনে করেন কবি।

তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশে আছে যারা রাষ্ট্রীয় পদক প্রাপ্ত হয়, তারা রেলে গেলে একটা টিকিট সে সহজে পায়, তাকে প্রাধান্য দেয়া হয়। বিমানের একটা টিকিট সে সহজে পায়। গ্যাস লাইন, বিদ্যুৎ লাইন এগুলো সে অন্যদের চেয়ে অগ্রাধিকার পায়।

কবি নির্মলেন্দু গুণ নীতিনির্ধারকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার অভিপ্রায়ে বলেন, তুমি যখন তাকে রাষ্ট্রীয় পুরস্কার দিয়ে সাধারণ নাগরিকের থেকে আলাদা করেছোই, তাকে আলাদা সুযোগ সুবিধা দাও, এটা তো সুযোগ-সুবিধাও না, আমাদেরকে তো ফ্রি দেয়ার জন্য বলছি না, মাফ করে দাও এরকমও তো বলছি না। আমি বলছি তারা (রাষ্ট্রীয় পুরস্কার প্রাপ্তরা) যখন নতুন বাড়িঘর তৈরি করবে, যখন যেন বিদ্যুৎ ও গ্যাসের সংযোগটা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পায়। কিন্তু আজকে সাত বছর হতে চললো আমাকে বিদ্যুতের সংযোগ এখনও দেয়নি। টাকাও জমা দেয়া আছে।

এবি/ এসআর/এএম

বেগুনি রঙের কাপড় পরলে মৃত্যুদণ্ড

প্রাচীন রোম ইতিহাসে নানা কারণে স্মরণীয় হয়ে আছে। রোম পুড়ে যাওয়ার সময় নিরোর বাঁশি বাজানোর

অপরাধীদের আস্তানায় ফলজ বাগান

কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা বীজ উৎপাদন খামার (বিএডিসি) এর দক্ষিণে বিস্তীর্ণ পাহাড়জুড়ে আগাছা, ঝোপঝাড়। ছেয়ে গেছে

তুরস্কের খাদ্যাভ্যাসের মধ্যে চা একটি অন্যতম খাবার

তুরস্কের চা-এর খ্যাতি বিশ্বজুড়ে রয়েছে। স্বাদে এবং পরিবেশনের ধরনে বৈচিত্র্য আছে। এ ধরনের কাপের মধ্যেই

উত্তরায় সিকিউরিটি কোম্পানির আড়ালে অভিনব এমএলএম প্রতারণা

সুনির্দিষ্ট নীতিমালার মাধ্যমে বেসরকারি  সিকিউরিটি কোম্পানিগুলোকে একটি নীতিমালার মধ্যে আনার প্রচেষ্টা সরকার চালালেও বেশিরভাগ সিকিউরিটি
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

কুবি শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে গোলযোগ সৃষ্টি কারীদের শাস্তির দাবি

পাবিপ্রবিতে সাপের আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা

রংপুরে সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে আ.লীগ-জাপা সহ ১০

পোশাক রপ্তানিতে বাংলাদেশ আবারও ভিয়েতনামকে ছাড়িয়ে গেল

ট্রাম্পের কর বিবরণী নথি কংগ্রেসে

১ বিলিয়ন ডলার কমতে পারে প্রবাসী আয়

এই শীতে টমেটো-শিম-লাউ  দিয়ে চিংড়ি মাছ রান্না

একাত্তরে পরাজয় ‘রাজনৈতিক নয় সামরিক ব্যর্থতায়’: বিলাওয়াল ভুট্টো

ঢাবি ছাত্রলীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথি ওবায়দুল কাদের

দেশের সার্বিক উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় পার্বত্যাঞ্চলের জনগণ সম-অংশীদার: প্রধানমন্ত্রী

জাবি সহকারী প্রক্টরের অনৈতিক ঘটনার তদন্তের দাবি

কুবি শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে দুইপক্ষের বাকবিতণ্ডা: নির্বাচন স্থগিত 

২ আসামির ফাঁসি কার্যকর রাজশাহী ও গাজীপুরে

বিএসএমএমইউয়ে ডক্টরস হল ও সিসিইউ-১ কেবিন উদ্বোধন

কিংবদন্তি পেলে আবারও হাসপাতালে

দুই শিশুর চিকিৎসার ব্যয়ভার নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

খেলা কাকে বলে দেখানো হবে বিএনপিকে : ওবায়দুল কাদের

বিজয় মাসের প্রথম প্রহরে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রদীপ প্রজ্বলন

১৩৩ জনের শাস্তির সিদ্ধান্ত ইসির

বেগুনি রঙের কাপড় পরলে মৃত্যুদণ্ড